তথ্য অধিকার হচ্ছে মানবাধিকার : তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

Bortoman Protidin

১৮ দিন আগে সোমবার, জুন ১৭, ২০২৪


#

আজ মঙ্গলবার (২৮ মে) সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে তথ্য কমিশন বাংলাদেশ-এর সম্মেলন কক্ষে ‘অনগ্রসর, প্রান্তিক ও সুবিধাবঞ্চিত নাগরিকের তথ্য অধিকার’ বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা প্রমাণের জন্য আহ্বান জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত বলেছেন, তথ্য অধিকার হচ্ছে মানবাধিকার। মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে এ সমাজে এটি আমরা নিশ্চিত করতে চাই। কারণ এই সমাজ যত জবাবদিহিমূলক হবে, স্বচ্ছ হবে, আমরা তত এগিয়ে যাবো। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি ছাড়া স্মার্ট সমাজ অসম্ভব, টেকসই উন্নয়ন অসম্ভব। পরিবেশ-প্রতিবেশ মাথায় রেখে সকল মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করে একসাথে এগিয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়ে প্রকৃত অর্থে টেকসই উন্নয়ন ও স্মার্ট সমাজ তৈরি হবে। এটি মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন, এটি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন।

তথ্য কমিশন বাংলাদেশ, ইউএস এইড, দি কার্টার সেন্টার যৌথভাবে এ কর্মশালা আয়োজন করে।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেছেন, গাজায় গণহত্যা নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ ও প্রচারের মাধ্যমে ডয়েচে ভেলে (DW) (জার্মানির রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন আন্তর্জাতিক সম্প্রচার সংস্থা)সম্প্রতি বাংলাদেশের মানবাধিকার নিয়ে একটি প্রতিবেদন করেছে। তারা শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতির সঙ্গে বাংলাদেশকে মিলিয়েছে। আমি তাদের সমালোচনা করব না- শুধু বলব, তাদের মানবাধিকারের প্রতি দায়বদ্ধতা থাকলে গাজায় যে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে, গণহত্যা চলছে সেটা নিয়ে একটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করে দেখাক। 

মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত বাংলাদেশে সবার তথ্য পাওয়ার নিশ্চিত করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। সমস্যা হয়, অনেক জায়গায় তথ্য অধিকার নিশ্চিত করতে গিয়ে বাধার সম্মুখীন হতে হয়। সব অধিকার নিশ্চিত হয়ে গেছে এটা বললে একটা বোকাও বিশ্বাস করবে না। আমার দেশের সমস্যাটা আমি সবচেয়ে বেশি বুঝি। দেশের একটি শক্ত নেতৃত্ব দরকার ছিল এখন সেটি আছে।

তথ্য অধিকার আইনটি কাউকে ব্ল্যাকমেইল করার জন্য নয় জানিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সরকারি পর্যায়ে যারা কাজ করেন, তাদের বুঝতে হবে তথ্যের মালিক জনগণ। তারা শুধু সংরক্ষণ করেন। জনগণের স্বার্থে গণমাধ্যম তথ্য চাইলে তাদের দিতে হবে। 

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, আরেকটি বিষয় সবার একটু ক্লিয়ার (স্পষ্ট) হওয়া দরকার, তথ্য কমিশন তথ্য দেয় না, তথ্য দেওয়া তাদের কাজ নয়, তথ্য পাওয়ার যে অধিকার আমার আছে আইনে, তা বাধাগ্রস্ত হলে তথ্য কমিশনে আসতে হবে। কেউ বাধা সৃষ্টি করলে তাকে শাস্তির আওতায় আনার কাজটি করে কমিশন।

ফেসবুকে বিভিন্ন গোষ্ঠী ভুয়া তথ্যের বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষগুলোকে প্রলুব্ধ করছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, তথ্য সঠিক হলে খুব ভালো কিন্তু তথ্য সঠিক না হলে অনেক ক্ষতির কারণ হতে পারে। আমি শুধু রাজনৈতিক তথ্যের কথা বলি তা কিন্তু নয়। ইতালির রাষ্ট্রদূত সম্প্রতি আমার কাছে এসেছিলেন, জানালেন সমুদ্রপথে অনেক মানুষ ইতালি যেতে গিয়ে মৃত্যুর সম্মুখীন হচ্ছেন। ফেসবুকে বিভিন্ন গোষ্ঠী ভুয়া তথ্যের বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষগুলোকে প্রলুব্ধ করছে। গ্রামগঞ্জের নারীরা সামাজিক মাধ্যমের অপতথ্যের কারণে অনেক সময় হেনস্তার স্বীকার হচ্ছেন। 

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, বেদে সম্প্রদায়ের মানুষজন কীভাবে নৌকায় নৌকায় জীবন পার করছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের জন্য আবাসনের আওতায় এনেছেন, তাদের ভোটাধিকারের ব্যবস্থা করেছেন। রাঙ্গাবালীর বান্দ্রা সম্প্রদায়ের লোকজন নৌকায় সন্তান জন্ম দিত এবং নৌকায় মৃত্যু হত। তারা ডাঙায় আসতে পারতেন না, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের ডাঙায় এনেছেন, আবাসনের ব্যবস্থা করেছেন এমনকি ভোটাধিকার নিশ্চিত করেছেন। 

প্রধান তথ্য কমিশনার ড. আব্দুল মালেক কর্মশালার আলোচনাপর্বে সভাপতিত্বে সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য দেন তথ্য কমিশনার মাসুদা ভাট্টি ও শহিদুল আলম ঝিনুক এবং ইউএসএইড বাংলাদেশের অফিস ডিরেক্টর অ্যালেনা তানসেরি। ইউএসএইড এবং দ্য কার্টার সেন্টারের সহযোগিতায় তথ্য কমিশন আয়োজিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন দ্য কার্টার সেন্টারের চিফ অব পার্টি সুমনা সুলতানা মাহমুদ।

কর্মশালার আলোচনাপর্বের শেষ পর্যায়ে তথ্য কমিশন নিউজলেটারের প্রথম সংখ্যার উদ্বোধন ঘোষণা করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত।

global fast coder
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  
Link copied